মুক্ত পেশাজীবীদের সাইট “vWorker” !

4
550 বার দেখা হয়েছে।

ফ্রিল্যান্সারদের কাছে ওডেস্ক কিংবা ফ্রিল্যান্সার যতটা পরিচিত অন্যান্য ফ্রিল্যান্সাসিং  জব সাইটগুলি সেতুলনায় অনেকটাই পিছিয়ে। অনেকে ধরেই নেন এর বাইরে উল্লেখ করার মত সাইট নেই। যদিও স্ক্রিপ্টল্যান্স, গুরু ইত্যাদি সাইটের তথ্যও এখানে তুলে ধরা হয়েছে আগে। ভিওয়ার্কার নামের সাইটের পরিচিতি তুলে ধরা হচ্ছে এখানে।

আগে এর নাম ছিল রেন্ট এ কোডার। কোডার বলতে যারা প্রোগ্রামিং কোড লেখেন। বর্তমান নাম ভিওয়ার্কার। কারন সম্ভবত শুধুমাত্র প্রোগ্রামিং কাজই না, অন্যান্য সব ধরনের ফ্রিল্যান্সিং কাজ করার সুযোগ রয়েছে তাদের মাধ্যমে। কোডিং ছাড়াও লেখালেখি, অনুবাদ সহ গ্রাফিক ডিজাইন এবং অন্যান্য কাজ পাওয়ার জন্য ভিওয়ার্কার ব্যবহার করতে পারেন।

vworker
অনেক সাইটে কাজ পাওয়ার জন্য অর্থ দিতে হয়। ভিওয়ার্কারে দিতে হয় না। কাজ করার পর সেকান থেকে তারা কিছু কমিশন কেটে নেয়। টাকা উঠানো যায় পেপল, ক্রেডিট/ডেবিট কার্ড ছাড়াও ওয়েষ্টার্ন ইউনিয়ন এবং মেইল চেক এর মাধ্যমে।

মাসে দুবার টাকা উঠাতে পারেন। অথবা সর্বনিম্ন কত জমা হলে তারা টাকা দেবে সেটা ঠিক করে দিতে পারেন। কাজ পাওয়ার নিয়ম অন্যান্য প্রধান সাইটগুলির মত। কাজের বর্ননা দেখে বিড করতে হয়। কাজের ধরন অনুযায়ী সহজেই কাজ খুজে বের করা যায়। এছাড়া ফিল্টার ব্যবহার করে নির্দিষ্ট ধরনের কাজ খুজে নেয়া যেতে পারে। তাদের সাইটে গিয়ে সদস্য হোন, নিজের প্রোফাইল তৈরী করুন, কাজের জন্য চেষ্টা করুন।

ভিওয়ার্কারের যে দিকটি নবিনদের কাছে সদস্যা মনে হতে পারে তা হচ্ছে প্রতিযোগিতা। সেখানে লক্ষ লক্ষ সদস্য রয়েছে যারা দক্ষ। তাদের সাথে সত্যিকারের প্রতিযোগিতা করতে হলে অবশ্যই নিজের প্রোফাইলকে যথেষ্ট উন্নত করা প্রয়োজন। সেক্ষেত্রে পরামর্শ হচ্ছে, একটিমাত্র কাজের জন্য বিড করে কি হয় দেখার জন্য অপেক্ষা করবেন না। যতগুলি সম্ভব বেশি সংখ্যায় বিড করুন। কোন একটিতে ভাল ফল পেতে পারেন। এভাবে একসময় নিজের প্রোফাইল উন্নত হবে।

Print Friendly, PDF & Email

4 COMMENTS

  1. রংপুরসোর্স ব্লগের পোস্টিং প্যানেলে আপনাকে স্বাগতম রানা ভাইয়া। আশা করি আপনি ভি-ওয়ার্কার নিয়ে আর ধারাবাহিক টিউটোরিয়াল লিখবেন।

    ভাল থাকুন! 🙂

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.