ফ্রীলান্সিং মার্কেটপ্লেস “ফীভার” টিউটোরিয়াল – শেষ পর্ব !

8
1,337 বার দেখা হয়েছে।

গত পর্বে আলোচনা করা হয়েছিল কিভাবে অর্ডার ডেলিভারি করবেন আজকে আলোচনা করা হবে পেমেন্ট উত্তোলনের ব্যাপারে । ফীভার থেকে পেমেন্ট উত্তোলনের একটাই উপায় তা হল পেপাল । শুধুমাত্র এই একটা কারনেই অনেকে এখানে কাজ করতে চান না কিন্তু বর্তমানে এটি তেমন কোনো সম্যসা নয় । দেশে অনেক ফ্রীল্যান্সার আছেন যারা নিয়মিত পেপাল এর মাধ্যমে টাকা লেনদেন করছেন । ভেরিফাইড পেপালের জন্য এই পোষ্টটি দেখতে পারেন ।

বায়ার আপনার কাজকে কমপ্লিট হিসেবে মার্ক করার পরে আপনাকে ১৪ দিন অপেক্ষা করতে হবে । ১৪ দিন পরে আপনার ব্যালেন্স উইথড্রাও করার জন্য Available হবে । চলুন দেখে আসি কিভাবে পেমেন্ট উত্তোলন করবেন ।

প্রথমে ফীভার একাউন্টে লগইন করে Sells>Revenue তে ক্লিক করুন ।

আপনার যদি উইথড্রও করার মত ব্যালেন্স থাকে তাহলে এরকম দেখতে পাবেন । “Withdraw your Earning” এ ক্লিক করুন ।

পরবর্তী পেজে আপনার পেপাল ইমেলটি প্রবেশ করাতে হবে । সবকিছু ঠিকভাবে পুরন করে সাবমিট করুন ।

আপনার পেপাল ইমেলে একটি একটিভশন লিংক পাঠানো হবে !

এবার আপনার ইমেল চেক করে একটিভিশন লিংকটিতে ক্লিক করুন ।

সবকিছু ঠিক থাকলে এরকম কনফার্মেশন মেসেজ দেখতে পাবেন ।

এবার আপনার পেপাল একাউন্ট চেক করে দেখুন পেমেন্ট জমা হয়ে গেছে । ট্রানজিকশন কমপ্লিট হতে সর্বোচ্চ এক মিনিট সময় লাগতে পারে। ট্রানজিকশন কমপ্লিট হবার পরে আপনার ব্যালেন্স Already Withdrawn ক্যটাগরিতে দেখতে পাবেন ।

ব্যাস হয়ে গেল আপনার পেমেন্ট উত্তোলন ।

পেমেন্টের প্রমান দেখুন নিচে…

সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ । হ্যাপি ফ্রীল্যান্সিং!!! 😀

Print Friendly, PDF & Email
Previous articlePinterest সাইট থেকে আয় ও তার খুঁটিনাটি!
Next articleYouTube.com থেকে আয় ও তার খুঁটিনাটি!
এই কোলাহল একদম ভাল লাগেনা তাই সময় পেলেই বন্ধুদের নিয়ে ছুটে যাই দুরে কোথাও নির্জনে যেখানে ব্যস্ততা নেই, নেই লোক দেখানো সুখি থাকার অভিনয়, যা আছে সবই প্রাকৃতিক ভাবে সৃষ্ট।দারুন ভবঘুরে ছিলাম আমি।একবার ঘুরতে বের হলে সময় জ্ঞান থাকতো না ।এই ব্যাস্ত জীবনে সেভাবে ঘোরা হয় না , যেভাবে ঘোরা আমার স্বভাব । দিন যায় রাত আসে আপন নিয়মে শুধু আসেনা সেই ভবঘুরে দিন গুলো। ব্যস্ত শহরের প্রতিটি ধুলিকনাও সমান ব্যস্ততার মাঝেই দিন কাটায়, এ বাড়ীর পাচিলে নয়তো কোন আট্রালিকার গ্রীলে ফাঁকে বসে থাকে অন্য কোথাও উড়ে যাবার জন্য। শান্ত নদীর বুকে উড়ে বেড়ানো চিল গুলো সর্বদা শান্তই থাকে, ঝাক বেঁধে উড়ে বেড়ায় আত্মতৃপ্তি নিয়ে নীড়ে ফেরে। ওদের সবারই কিছু কিছু চাওয়া থাকে, থাকে প্রাপ্তির সম্মিলনও,কিন্তু কিছু কিছু মানুষের জীবন ? কিঞ্চিৎ স্বপ্ন দেখতেও তাদের ভয়, পাছে স্বপ্ন ভঙ্গের বেদনা তারা করে সব সময়।দিনের শেষে ফিরে যাবার মত একটা নীড়ও তাদের নেই, আমি সেই দলেরই একজন.............. আমিতো সামান্য একজন মানুষ, শহরের ধুলিকণা কিংবা শঙ্খচিল হতে পারিনা। কাউকে স্বপ্ন দেখাতে জানিনা, জানিনা কিভাবে স্বপ্ন দেখতে হয়। জানিনা কিভাবে ভালবাসতে হয়। আমার আনুভুতিগুলো ভোতা হয়ে গেছে। তাইতো সারাদিন যন্ত্র নিয়ে পড়ে থাকি, যন্ত্র হওয়ার সাধানায় মত্ত আমি। যন্ত্র দিয়েই একেঁ চলি জীবনের প্রতিচ্ছবি, প্রতিটি জীবনেই আলাদা একটা প্যাটার্ণ থাকে, নানা রংয়ের সমাহারে ভেক্টর আকাঁ থাকে মনের গহীনে, পাজরের মাঝে সুপ্ত করে লুকানো থাকে এক ছবি হাজারো pixel দিযে গঠিত সে ছবি। সময়ের স্রোতেই হোক কিংবা বাস্তবতার কষাঘাতেই হোক ধিরে ধীরে সব কিছুই Bluer হয়ে যাচ্ছে হৃদয়ের মনিটরে। এত কিছুর পরেও একেঁ চলি জীবনের জল ছবি; স্বপ্নের কালো রংয়ে............

8 COMMENTS

    • হে হে হে , শুধু পার্টি না , আরও অনেক কিছুই দিমু 😉

    • লিংক আপডেট করা হয়েছে । ধন্যবাদ ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.